সামষ্টিক অর্থনীতির জনক কে

আধুনিক বিশ্বে একটি রাষ্ট্রে অর্থনীতি একটি বিশেষ দিক, ব্যবসায়িক উদ্যোক্তা, সরকার এবং দেশসমূহ সম্পদের যথাযথ বন্টন নিশ্চিত করতে পারে অর্থনীতি। অর্থনীতির মূল কাঠামো হল শ্রম এবং বাণিজ্যের অধ্যয়ন। আর এই অর্থনীতিতে প্রধানত দুটি মৌলিক শাখা রয়েছে। একটি হলো সমষ্টিক গত অর্থনীতি আর উন্নতি হল ব্যক্তিক বা ক্ষুদ্র অর্থনীতি। আর এই সমষ্টিক গত অর্থনীতিতে সমষ্টিক সূচক নিয়ে আলোচনা করা হয়। সামষ্টিক অর্থনীতি অর্থনীতির দুইটি সাধারণ মুল ক্ষেত্রের একটি। সামষ্টিক অর্থনীতিবিদ গন পুরো অর্থনীতি কর্মকাণ্ড বোঝার জন্য জিডিপি, বেকার ত্বের হার ও মূল্য সুচকের মত সামগ্রিক নির্দেশক নিয়ে আলোচনা করে। তাই সামষ্টিক অর্থনীতির জনক কে এই প্রশ্নটির উত্তর জেনে নিতে অনেক বেশ আগ্রহী। তাই আমরা আপনাদের সুবিধার জন্য আমাদের আজকের আর্টিকেল টিতে আপনাদের কাঙ্খিত প্রশ্নের সঠিক উত্তরটি জানিয়ে দেব।

সমষ্টিক অর্থনীতি সাধারণত জাতীয় আয়ের বিশেষ দিক গুলো সম্পর্কে জানিয়েছে। অর্থনীতি একটি রাষ্ট্রের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আর অর্থনীতির দুটি শাখার মধ্যে সমষ্টিক অর্থনীতি অর্থনীতির খুব গুরুত্বপূর্ণ শাখা। তাই অর্থনীতির এই গুরুত্বপূর্ণ শাখা সম্পর্কে ভালোভাবে না জানা থাকলে অর্থনীতির দিক গুলো সম্পূর্ণ ভাবে জানা যায় না। তাই আমরা আপনাদেরকে জানিয়ে দেবো সমষ্টি অর্থনীতির জনক কে। আপনারা যারা এই বিষয়টি সম্পর্কে জানার জন্য গুগল সহ ইন্টারনেটের নানান জায়গায় অনুসন্ধান করেছেন আমরা প্রতিনিয়ত এ বিষয় গুলো সম্পর্কে আমাদের ওয়েব সাইটে প্রকাশিত করি তাই আপনারা গুগলে সার্চ করার সাথে সাথে আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করে আপনাদের এই প্রশ্নের উত্তর গুলো বিস্তারিত ভাবে জেনে নিতে পারবেন। তা ছাড়া আপনারা আপনাদের সুবিধা অনুযায়ী আমাদের ওয়েব সাইট থেকে সকল ধরনের তথ্য ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

আধুনিক অর্থনীতিতে সমষ্টিক অর্থনীতির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ব্যাপকভাবে বিস্তারিত। সমষ্টিক অর্থনীতি দেশের অর্থ ব্যবস্থার বিভিন্ন খাত একক সমূহ কে পরিলক্ষীত করতে থাকে। সমষ্টিক অর্থনৈতিক বিশ্লেষণার বিভিন্ন অর্থনৈতিক নানাভাবে বিশ্লেষণে অর্থনৈতিক চলক সমূয়ের কার্যকর নির্ণয় করে এবং তার উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন অর্থনৈতিক দিক গুলোকে চিহ্নিত করে তা সমাধানের পথ সৃষ্টি করে। এক টি দেশের প্রাকৃতিক সম্পদের দক্ষ ব্যবহারের মাধ্যমে যে চূড়ান্ত দ্রব্য ও সেবা উৎপাদন করা হয় তার বাজার মূল্যের সমষ্টি বিষয় গুলো সঠিক দিক জানিয়ে দেওয়া হয় সমষ্টিক অর্থনীতির মাধ্যমে। সমষ্টিক অর্থনীতির স্থিতিশীলতায় অন্যতম দুটি বাধা রয়েছে একটি হলো মুদ্রানীতি অন্যটি হলো বেকারত্ব। তাই সমষ্টিক অর্থনীতিতে এটার নিয়ন্ত্রণ রাখাটা জরুরী।

একটি দেশের জনগণের সঙ্গে অন্য আরেকটি দেশের জনগণের বিভিন্ন ধরনের অর্থনৈতিক লেনদেন ঘটে। আর এই লেনদেনকে বৈদেশিক লেনদেন বলা হয়। এর ভেতরে আছে আমদানি রপ্তানি ও মূলধনের প্রবাহ। আর এক্ষেত্রে সমষ্টি অর্থনীতির অবদান অনন্য। আমরা আপনাদের সমষ্টিক অর্থনৈতিক বিষয়ে অনেক ধরনের তথ্য জানিয়ে দিলাম। এবার আপনাদের আমরা জানিয়ে দেবো সমষ্টিক অর্থনীতির জনক কে। জন মাইনাড কেইন্সকে সামস্টিক অর্থনীতির জনক বলা হয়। এই বিজ্ঞানী দীর্ঘদিন এই বিষয় টির ওপর নানান ধরনের তথ্য দিয়ে গেছেন এবং এই শাখায় তার বিশেষ অবদান রয়েছে। তার জন্য তাকে সমষ্টিক অর্থনীতির জনক স্বীকৃতি প্রদান করা হয়। অর্থনীতির যে কোন এই শাখা কে জানতে হলে অবশ্যই আমাদেরকে সমষ্টিক অর্থনৈতিক বিষয়ক জ্ঞান থাকতে হবে। তাই আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটে বারবার ভিজিট করুন আপনার যেকোনো প্রয়োজনীয় তথ্য জানার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *