ভ্যাট নির্ণয়ের সূত্র

পৃথিবীর যে কোন মানুষ কোন না কোন দেশের নাগরিক হয়ে থাকে। যে কোন দেশের প্রত্যেক নাগরিককে সেই দেশে আইন নিয়মকানুন মেনে চলতে হয়। সেই দেশের নিয়ম অনলাইন নিয়মকানুন বাদ দিয়ে ও সেই দেশের নাগরিককে আরেকটি কাজ করতে হয় সেটি হচ্ছে প্রত্যেক নাগরিককে সরকারকে প্রদান করতে হয়। এই সরকারকে প্রধান বিভিন্ন ভাবে জনগণকে করতে হয়। আজ আমরা সরকারকে কিভাবে ভ্যাট প্রদান করি বা ভাগ প্রদানের যে সত্য সেটি নির্ণয় করে দেখাবো। আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটটিতে অবশ্যই ভিজিট করুন। আমাদের ওয়েবসাইটে আপনাদের প্রয়োজনীয় শিক্ষা বিষয়ক সকল প্রশ্নের উত্তরগুলি সঠিক ভাষায় সুন্দর ভাষায় প্রাঞ্জল এবং বোধগম্য করে দেওয়া হয়।

তাই কোন শিক্ষার্থীর আমাদের এই ওয়েবসাইটের ভাষাগুলি বুঝতে অসুবিধা হয় না। যে সকল শিক্ষার্থী শ্রেণীকক্ষের শ্রাদ্ধের কথা ঠিকমতো শোনে না অথবা বুঝতে পারেনা অথবা ক্লাসে অমনোযোগী থাকে সে সকল শিক্ষার্থীরাও আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করে তাদের শ্রেণী অনুযায়ী প্রশ্নের উত্তরগুলি দেখে নিতে পারে। যেহেতু আমাদের ওয়েবসাইটের সকল প্রশ্নের উত্তরগুলি উত্তর গুলির ভাষায় অত্যন্ত সহজ সরল সাবলীল ভাষায় রচিত তাই তাদের বোধগম্য হতে সময় লাগবে না আশা করি।

এবং যে সকল শিক্ষার্থী আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে প্রশ্নের উত্তরগুলি ডাউনলোড করে নিতে চায় তারাও প্রশ্নের উত্তরগুলি ডাউনলোড করে নিতে পারবে অনায়াসে। কারণ আমাদের ওয়েবসাইট থেকে প্রশ্ন ডাউনলোড করে নিতে এক্সট্রা কোন চার্জের প্রয়োজন হয় না। তাই যে সকল শিক্ষার্থীর বাড়িতে নোট বই অথবা গাইড বই নেই তারা ইচ্ছা করলে আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে তার শ্রেণী অনুযায়ী প্রশ্নের উত্তরগুলি নিয়ে পড়াশোনা করতে পারবে অনায়াসেই।

তাই ডিজিটাল বিশ্বে এখন আর নোট গাইড বই নিয়ে সব সময় ঘোড়ার প্রয়োজন হবে না যদি আপনার সাথে একটি স্মার্টফোন থাকে তাহলে আপনি যেখানেই থাকেন যেভাবে থাকেন আপনার স্মার্টফোনের সাহায্যে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্যটি উত্তরটি পেয়ে যেতে পারেন আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে। তাই আপনাদের সকলকে বলছি আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করুন এবং আমাদের পাশে থাকুন আর আমরা আপনাদেরকে সঠিক তথ্য সঠিক সময় প্রদান করে আপনাদের পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করছি।

রাজ প্রথার সময় রাজ্যের প্রতিটি রাজ্যবাসীকে বা জনগণকে তাদের রাজাদের খাজনা দিয়ে বসবাস করতে হত। রাজ প্রথা বিলুপ্ত হয়ে গেলেও সেই সরকারকে খাজনা ট্যাক্স বা ভ্যাট দেওয়ার প্রথা বিলুপ্ত হয়ে যায়নি। এখনো সকল দেশের সকল নাগরিককে তাদের সরকারকে ভ্যাট প্রদান করে যেতে হয়। দেশের সকল নাগরিক যেহেতু তাদের পণ্য ক্রয় করে বাজার থেকে। সেই পণ্যের উপর সরকার আগে থেকেই ভ্যাট দিয়ে রাখে। এই ভ্যাট বসানো পণ্য ক্রয় করলেই আমরা সরকারকে ভ্যাট দিয়ে থাকি।

অর্থাৎ আমরা যদি বাজার হতে একটি কলম ক্রয় করি তাহলে এই কলম ক্রয় করার মাধ্যমে সরকারকে ভ্যাট প্রদান করা হলো। কারণ কলমটির উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান তার কলমের উৎপাদন খরচের সঙ্গে সরকারের ভ্যাট সহ মূল্য নির্ধারণ করে দেয়। সরকার সেই উৎপাদনকারীর কাছ থেকে তার ভ্যাট নিয়ে নেয়। এভাবে একজন নাগরিক সরকারকে ভ্যাট প্রদান করে থাকে। এছাড়াও ভ্যাট নির্ণয়ের একটি সূত্র রয়েছে সূত্রটি নিম্নরূপ ভাবে প্রকাশ করা যায়।
ভ্যাট=(উৎপাদনকারীর বিক্রয় মূল্য – মূল্যটির উৎপাদন খরচ)

এভাবে দেশের প্রতিটি নাগরিক সরকারকে ভ্যাট প্রদান করে থাকে। বাজার হতে কোন দ্রব্য ক্রয় করলেই সরকারকে ভ্যাট দেওয়া হয়ে যায়। তবে অনেক অসাধু ব্যবসায়ী আছে । তারা সরকারকে ঠিকমতো ভ্যাট প্রদান না করে দেশের বারোটা বাজিয়ে দিচ্ছে। কিন্তু দেশের প্রত্যেক নাগরিকেরই উচিত দেশের সরকারকে সঠিক নিয়মের সঠিকভাবে ধার প্রদান করে থাকা। এবং প্রতিটি সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের কে জনগণের এই ভ্যাটের টাকা ট্যাক্সের টাকা সঠিক নিয়মে সঠিক উপায় ব্যবস্থা করা। যেকোনো প্রশ্নের উত্তর পেতে আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করে সব সময় আমাদের পাশে থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *